Thursday, June 6, 2024
উপন্যাস

অকালচক্রের কাঁটা

36 thoughts on “অকালচক্রের কাঁটা

  • সন্দীপন চট্টোপাধ্যায়

    অসামান্য, অপূর্ব – উপন্যাসটি হার্ড সাই ফাই বটেই, কিন্তু চমৎকার সাহিত্যের রাস্তা থেকে একচুলও সরে আসেনি। টাইম ট্রাভেল নিয়ে লিখতে বসে অনেক নামকরা লেখকও ছড়িয়েছেন। কিন্তু এই লেখাটি একটা মাইলফলক হয়ে থাকবে। দুর্দান্ত ব্যাখ্যা সমেত একটা সম্পূর্ণ কল্পবিজ্ঞান। লেখককে অনেক অনেক অভিনন্দন। আমরা তাঁর থেকে এরকম আরও লেখা আশা করব।

    Reply
    • মোহাম্মদ সাইফূল ইসলাম

      ধন্যবাদ দাদা। এই গল্পটা অনেকটা রাগ করেই লেখা। বাংলায় সেই গতানুগতিক ধাচের টাইম ট্রাভেল সাইফাই পড়তে পড়তে বিরক্ত হয়েই এই লেখাটা লিখতে বসেছিলাম।

      “দাদার ডাইরি পড়ে বাড়ির গ্যারেজে বসে বসে টাইমমেশিন বানিয়ে ফেললাম অথবা অতীতে গিয়ে নিজেকে মহাগুরুত্বপূর্ণ কিছু তথ্য দিয়ে আসলাম বা নিজের বোকামীর জন্যে একটি চক্রে আটকা পড়লাম” এই ধরনের চর্বিতচর্বণ প্লটের গল্প পড়ে রাগ থেকে এই গল্পের অবতারণা।

      বলছি না যে ঐ প্লটের গল্প ভালো হয় না, অবশ্যই ভালো গল্পও হতে পারে। কিন্তু একই টাইপের গল্প আর কত ভালো লাগে? তাই ব্যতিক্রমী কিছু লেখার চেষ্টা আর কী! এখন পাঠকের ভালো লাগলেই রাগ/দুঃখ/অভিমান সব স্বার্থক হবে।

      অনেক শুভকামনা রইল।

      Reply
  • কী লিখেছেন ভাই! হ্যাটস অফ! হার্ড সাইফি আর কল্পনার এমন মিশ্রণ এই বাংলায় এমন মৌলিক কাহিনিতে দেখতে পাব – এ ভাবতেও পারিনি। অসাধারণ লেখা। আরও লিখুন, পড়ার জন্য আমরা আছি, থাকব। অল দ্য বেস্ট।

    Reply
    • মোহাম্মদ সাইফূল ইসলাম

      অনেক ধন্যবাদ ভাই। আপনার মতো গুণী লেখকের কাছ থেকে এমন প্রশংসা পাওয়া আমার জন্যে অনেক অনুপ্রেরণার। অনেক শুভকামনা রইল।

      Reply
  • Sourav Ghosh

    Banglay time travel niye eto bhalo hard sci fi pray porai hoyeni Amar…ba hoyto lekhai hoyeni…ei lekha ek itihas.. suvecha o bhalobasa neben…erokom golpo aro chai :)darun . Darun…

    Reply
    • মোহাম্মদ সাইফূল ইসলাম

      থ্যাংকস ভাই। চেষ্টা করেছি ব্যতিক্রমী কিছু লেখার। আপনার ভালো লেগেছে দেখে আমারও ভালো লাগছে। লেখার খাটুনিটা আনন্দে রুপান্তরিত হয়ে গেল। অনেক শুভকামনা রইল।

      Reply
  • Kousik Banerjee

    বিজ্ঞান থেকে শুরু হয়ে মানবিকতায় শেষ, এক অসামান্য হার্ড সাই ফাই পড়লাম , আপনাকে অনেক শুভেচ্ছা, ভবিষ্যতের জন্য দাবী রইলো পাঠক হিসেবে।

    Reply
    • মোহাম্মদ সাইফূল ইসলাম

      অনেক ধন্যবাদ ভাই। শুভকামনা রইল।

      Reply
  • সুদীপ দেব

    অসামান্য লেখা! বাংলায় এমন বাস্তব কল্পবিজ্ঞান কবে পড়েছি মনে করতে পারছি না, বিশেষ করে সময় ভ্রমণের ওপর। তার সঙ্গে এক টানটান থ্রিলারের স্বাদ এবং এমন একটি অনুভূতি যা এই লেখাটি পড়ে কিছুক্ষণ চুপ করে বসিয়ে রাখে। কুর্ণিশ!

    Reply
    • মোহাম্মদ সাইফূল ইসলাম

      অনেক ধন্যবাদ ভাই, এমন চমৎকার মন্তব্য করে উৎসাহ দেওয়ার জন্যে। শুভকামনা রইল।

      Reply
  • Jayanta Karmakar

    Daun. Durdanto. kono bhasha nei. aro beshi beshi kore likhun… amader porar khide bariye dilen.

    Reply
    • মোহাম্মদ সাইফূল ইসলাম

      অনেক অনেক ধন্যবাদ। এমন চমৎকার মন্তব্য লেখার আগ্রহ আরও বাড়িয়ে দেয়। অনেক শুভকামনা রইল আপনার জন্যে।

      Reply
  • Shanta Chakrovortty

    অসাধারন হয়েছে। এমন scientific লিখা আগে পড়িনি। time machine related English movie দেখেছি। চমৎকার লিখা হয়েছে।

    Reply
    • মোহাম্মদ সাইফূল ইসলাম

      অনেক ধন্যবাদ দিদি। আপনার জন্যে অনেক শুভকামনা রইল।

      Reply
    • সুদীপ্ত সাহা

      Awesome💯💯💗💗

      Reply
  • কৃশাণু নস্কর

    অসাধারণ !!!! অপূর্ব !! বহুদিন পর এমন দুর্দান্ত একটি sci-fi পড়লাম। আরও এমন লেখা পড়ার আশায় রইলাম।

    Reply
    • মোহাম্মদ সাইফূল ইসলাম

      অনেক অনেক ধন্যবা। এমন মন্তব্য আরও লেখার অনুপ্রেরণা জোগা। ভালো থাকুন, নিরন্তর শুভকামনা।

      Reply
  • souvik

    অসাধারণ অসাধারণ ! মিথ্যে বলবোনা লাস্ট একবছর মতো এই ম্যাগাজিনে কল্পবিজ্ঞান গল্প এর নামে যে পরিমাণ অত্যাচার করা হতো পাঠকদের উপর তা রীতিমতো সহ্যের সীমা ছাড়িয়ে গিয়েছিলো। অনেক টা ওই যা লেখে তাই আধুনিক কবিতার মতো যা লেখে তাই কল্পবিজ্ঞান হয়ে গিয়েছিলো! আগে প্রতি তিনমাস অন্তত অপেক্ষা করে থাকতাম কবে বেরোবে ম্যাগাজিন! এইবারের দেখলাম অবচেতন থেকেই ভুলে গেছি ম্যাগাজিন টার কথা। মানে মস্তিষ্ক আর চাচ্ছেনা কল্পবিজ্ঞান পড়ার নামে তার উপর কোনো অত্যাচার হোক।
    .
    এই অবস্থায় আজ হঠাৎ এক বন্ধু আপনার গল্পের লিঙ্ক পাঠিয়ে বলল অসাধারণ লিখেছেন ভদ্রলোক ‚ পড়ে দেখ। লিঙ্ক খুলে দেখি ……………! বাপরে বাপ! কি সাঙ্ঘাতিক লিখেছেন দাদা। এক নিঃশ্বাসে পড়ে যাওয়ার মতো অবস্থা হলো। খাওয়ার সময়ও ফোন হাতে করে বসেছি ‚ না পড়ে ছাড়তে ইচ্ছাই করছিলোনা।
    .
    দারুণ দারুণ! আপনার হাতে তো সরস্বতী বাস করে দেখছি। অসাধারণ হয়েছে ! ধন্যবাদ এমন একটা উপহারের জন্য!

    Reply
    • মোহাম্মদ সাইফূল ইসলাম

      কি বলব ভেবে পাচ্ছি না। আপনি এতো উচ্ছ্বসিত প্রসংশা করেছেন যে, রীতিমতো আপ্লুত হয়ে গেছি। সেইসাথে কিছুটা বিব্রতবোধও করছি। এতো প্রসংশার কি আসলেই যোগ্য এই লেখা?

      অদ্ভুত ভালোও লাগছে আপনার চমৎকার মন্তব্য পড়ে, বারবার পড়তে ইচ্ছা হচ্ছে।

      অনেক অনেক শুভকামনা রইল, দাদা। দোয়া করবেন যেন আরও লিখে যেতে পারি।

      Reply
    • কল্পবিশ্ব পত্রিকা

      আপনার মতামতের জন্যে ধন্যবাদ সৌভিক। কল্পবিশ্ব শুধু কল্পবিজ্ঞান নয়, স্পেকুলেটিভ ফিকশানের পত্রিকা। তার সমস্ত গল্প কল্পবিজ্ঞান নাও হতে পারে। যাই হোক শুধু মাত্র কল্পবিজ্ঞানের নামে ‘অত্যাচার করা হচ্ছে’ এমন অভিযোগ এই প্রথম আমরা পেলাম। কিন্তু মুস্কিল হল, ব্যাখ্যা করে না জানালে তো এই নিয়ে আলোচনা চালানো যায় না। আপনাকে অনুরোধ জানাচ্ছি কল্পবিজ্ঞান গ্রুপে আপনার অপছন্দের ‘যা লেখে তাই কল্পবিজ্ঞান’ নিয়ে একটু আলোচনা করতে। তাহলে আমরাও একটু দিশা পাবো আপনাদের পছন্দ কি ধরনের কল্পবিজ্ঞান তাই নিয়ে। কল্পবিশ্বের পাঠক সংখ্যা সারা পৃথিবীতে লাখ খানেক ছাড়িয়ে গেছে। সেখানে সবার পছন্দ মত সব গল্প প্রকাশ করা সম্ভব নয়, তবুও আপনাকে অনুরোধ করব – এই ধরনের মন্তব্য করার আগে একটু ভেবে চিন্তে আলোচনার মাধ্যমে আপনার পছন্দ অপছন্দ জানাতে। আমাদের সাথে আপনি kalpabiswa.kalpabijnan@gmail.com – এই ইমেইল আইডিতেও মতামত জানাতে পারেন।
      -কল্পবিশ্ব

      Reply
  • Shamba Chatterjee

    দারুণ লিখেছেন। আপনার কলমের দীর্ঘায়ু কামনা করি।

    Reply
    • মোহাম্মদ সাইফূল ইসলাম

      আমি মূলত হার্ডকোর সাইফাই লেখি। এধরণের গল্পের পাঠক আমাদের এখানে কম। স্রোতে না ভেসে তাই এখনও এইসব গল্প লিখে যাচ্ছি। আপনার মতো পাঠকের এমন চমৎকার অনুপ্রেরণামূলক মন্তব্য লেখার আগ্রহ বাঁচিয়ে রাখে। অনেক ধন্যবাদ৷ আশা করি সামনের লেখাগুলোও ভালো লাগবে।

      Reply
  • AbsPappu

    খুবই ভালো লাগলো। চালিয়ে যান

    Reply
    • মোহাম্মদ সাইফূল ইসলাম

      অনেক অনেক ধন্যবাদ। আশা করি সামনের লেখাগুলোও আপনার ভালো লাগবে।

      Reply
  • Sohan Tasveer

    আমি অনেকক্ষন ভাবলাম কি মতামত করব। কিন্তু এত্তো এত্তো চমৎকার একটা সৃষ্টির জন্য পর্যাপ্ত সম্বোধনসূচক মতামত আমি খুঁজে পাচ্ছিনা মনের ডিকশনারিতে

    Reply
    • মোহাম্মদ সাইফূল ইসলাম

      কিছু বলতে হবে না। আপনার অল্পকিছু শব্দই আমাকে ভীষণ অনুপ্রাণিত করেছে। শুভকামনা রইল।

      Reply
  • A.A.Hoque

    কি অসাধারন গল্প লিখলেন আপনি!!!!!!!অনেকদিন পর আমি কোন ওয়েবসাইটে এক বসাতেই পুরো একটি গল্প\উপন্যাস পড়ে শেষ করলাম।সময় ভ্রমন নিয়ে পড়তে পড়তে বুঝতেই পারিনি কতোটা সময় চলে গেছে। প্লিজ আরো লিখুন।এ গল্পটি পড়েই আপনার নতুন বইটি কেনার লিস্টে নিয়ে ফেললাম রকমারিতে।শুভ কামনা ভাইয়া।

    Reply
    • মোহাম্মদ সাইফূল ইসলাম

      অনেক ধন্যবাদ ভাই। সম্মানিতবোধ করছি। আশা করি ও টু উপন্যাসটিও ভালো লাগবে। পড়া হলে একটা রিভিউ দিয়েন, সম্ভব হলে। শুভকামনা রইল।

      Reply
  • বাংলাদেশ থেকে পড়ছিলাম;

    এখন সায়েন্স ফিকশন বলতে তো একক গল্প হয়ে গেছে। আর এ লেখায় বহু চরিত্রের সংমিশ্রণে বাস্তবতা আর যুক্তি সবমিলিয়ে অনন্য মাত্রা যোগ করেছে।

    পুরোটা সময় লেখার মধ্যে ডুবে ছিলাম।
    যা বুঝলাম লেখকের লেখার প্রতি ভালোবাসা বিদ্যমান, যেটা খুব একটা এই সময়ের লেখকদের মাঝে দেখা যায় না।

    শুভকামনা রইলো, পরবর্তী লেখার অপেক্ষায় থাকলাম ❤️

    Reply
    • মোহাম্মদ সাইফূল ইসলাম

      অনেক ধন্যবাদ প্রিয় পাঠক। আপনার মন্তব্য পরের গল্প লেখায় অনুপ্রেরনার কাজ দিবে।

      পরের গল্প, (ঠিক গল্প নয়, উপন্যাস) নালন্দা প্রকাশনি থেকে এবারের একুশে বই মেলায় বের হয়েছে। উপন্যাসের নাম “ও টু” পড়ে দেখতে পারেন। শুভকামনা রইল। রকমারি থেকে অনলাইনেও যোগাড় করতে পারেন।

      Reply
  • HelloWorld

    গল্পের মাঝামাঝি আছি। চমৎকার লেখা। একটা বিষয়ে খটকা লাগল – টাইম ট্রাভেল এজেন্সি গুলো যে মানুষগুলোকে অতীতে পাঠাচ্ছে, তারা ফেরত আসছে কিভাবে? ভবিষ্যৎ ভ্রমণ তো সম্ভব নয়! এক মিলিয়ন, দুই মিলিয়ন বছর অতীতের যাত্রা যদি একমুখী হয়, তাহলে লোকজন ছুটি কাটাতে, হানিমুন করতে অতীতে যাওয়ার প্ল্যান করছে কিভাবে?

    Reply
    • সাইফূল ইসলাম

      আপনি কতটুকু পড়েছেন বুঝতে পারছি না। আপনার প্রশ্নটির উত্তর গল্পে আছে। আমি আপাতত কমেন্টে সংক্ষেপে বলে দিচ্ছি। স্পয়লারও হয়ে যেতে পারে।

      পোর্টাল একবার খোলার পর যতক্ষণ পর্যন্ত ট্রাভেলররা ফিরে না আসছে ততক্ষণ পর্যন্ত সেটি একটিভ রাখা হয়। কারণ একই সময়ে আবার টাইম পোর্টাল খোলার সম্ভব নয়। কারণ মিলিয়ন বছর অতীতে একুরেসি প্লাস মাইনাস দশ বছর। আর এই কারণেই দুই বার ভরের অসামঞ্জস্যতা তৈরি হচ্ছে। প্রথমবার যখন অতীতে যাচ্ছে, দ্বিতীয় বার যখন আবার নিজ সময়ে ফিরে আসছে। আর এই কারণেই সেই সুদূর অতীত থেকে বর্তমান পর্যন্ত এলেক্স ওয়েভের সৃষ্টি হচ্ছে এবং মহাবিশ্ব বিপুল পরিমান ভর হারাচ্ছে।

      আর জামিল কিন্তু সময় সমীকরণের সমাধান অতীত ও ভবিষ্যত ভ্রমণ দুটি ক্ষেত্রেই সমাধান করা করেছিলো। কিন্তু ভবিষ্যত ভ্রমণ যে কারণে সম্ভব হচ্ছে না সেটির ব্যাখ্যাও দেওয়া হয়েছে। নিকট অভিষ্যতে তো যাওয়া যাবে না, প্রচুর শক্তির প্রয়োজন। আবার দুই তিন মিলিয়ন বছর ভবিষ্যতের পোর্টাল খোলা যাচ্ছে না, কারণ তখন আমাদের পৃথিবী শূন্যে মিলিয়ে গেছে। মানে, স্থান-কালের মাত্রার বাইরে, অস্তিত্বহীন হয়ে পড়েছে।
      অনেক ধন্যবাদ। পড়া শেষ হলে আপনার বিস্তারিত সমালোচনা প্রত্যাশা করছি। শুভকামনা রইল।

      Reply
      • HelloWorld

        পড়া শেষ করেছি।
        টাইম ট্র্যাভালিং নিয়ে আমার ফ্যাসিনেশন সাধারণ থেকে একটু বেশি। এ সংক্রান্ত কোন গল্প পেলে পড়ে ফেলি। নেটফ্লিক্সে মুভি দেখার ইচ্ছা হলে “টাইম” লিখে সার্চ দেই। নেটফ্লিক্সে “Dark” নামের একটি টিভি সিরিজ আছে – জার্মান টিভি সিরিজ। কাহিনী, সাসপেন্স, থ্রিল সবকিছু মিলিয়ে আমার দেখা সবচেয়ে উপভোগ্য টাইম ট্রাভেল সংক্রান্ত টিভি প্রোগ্রামগুলোর একটি।

        এই গল্পটিতে “Dark” এর সাসপেন্স আর থ্রিল রয়েছে। তবে সবকিছু মিলিয়ে “Dark” কে ছাড়িয়ে যাওয়ার কারণ হচ্ছে গল্পের পেছনের মৌলিক বৈজ্ঞানিক গবেষণা, কার্যকরণের সম্পূর্ণতা। আন্তর্জাতিক সাহিত্যে টাইম ট্রাভেল অনবদ্য সব সৃষ্টি রয়েছে, তাই সে তুলনায় আমি যাব না। বাংলা ভাষায় এ নিয়ে যেসব লেখা আমি পড়েছি, তার মধ্যে এটিকে প্রথমে স্থান দেয়া যায়।

        এই গল্পটি ইংরেজিতে প্রকাশের কোন পরিকল্পনা লেখকের আছে? এটি অন্যান্য ভাষাভাষী পাঠকের মধ্যে ছড়িয়ে যাওয়ার দাবী রাখে।

        Reply
        • মোহাম্মদ সাইফূল ইসলাম

          অনেক অনেক ধন্যবাদ। আপনি যেভাবে লেখাটির প্রশংসা করলেন, কি বলব ভেবে পাচ্ছি না। খানিকটা আপ্লুত হয়ে গিয়েছি।

          ইংরেজিতে প্রকাশের ইচ্ছা ছিলো, কিন্তু আমি নিজে করলে সাহিত্যমান বজায় রাখতে পারবো না।

          তবে টেক্সাসে বসবাসকারী একজন বাঙালী বড়ভাই লেখাটার ইংরেজি করার কথা বলেছেন। কিছুদিনের মধ্যেই আশা করি শেষ হবে।

          অনেক ধন্যবাদ, শুভকামনা রইল।

          Reply
  • Dipen Bhattacharya

    বাহ! চমৎকার! সাইফূল ইসলাম হাইজেনবার্গ অনিশ্চয়তা ও ভরের সংরক্ষণ নীতিকে খুবই সুচারুভাবে প্রয়োগ করেছেন। ভবিষ্যতের দেশ-কাল বিলোপের দরুণ ভ্রমণ সম্ভব হচ্ছে না সেই ধারণাটিও বেশ অভিনব। অনেক কটি প্রাকৃতিক বিজ্ঞানের নীতিকে লেখক মুন্সীয়ানায় প্রয়োগ করেছেন। যবনিকাটিও অনান্য। তাঁকে অভিননন্দন। তিনি আরো লিখুন। দীপেন ভট্টাচার্য

    Reply
  • গল্পটা এক কথায় দারুণ লাগলো। মনে হলো যেন সবকিছু এমনি হতে পারে। Today’s fiction tomorrow’s reality, who knows what will happen. যুক্তিগুলো একেবারে অকাট্য ছিল। বেশ উপভোগ করেছি গল্পটি।

    Reply

Leave a Reply

Connect with

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

error: Content is protected !!
Verified by MonsterInsights